ডা. অন্তরা এখনও জানেন না স্বামীর মৃত্যুর খবর

115249.jpeg

সিলেটের রশিদপুরে সড়ক দুর্ঘটনায় আহত ডা. শারমিন আক্তার অন্তরার (২৯) অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়েছে।  শুক্রবার বিকেলে তার অস্ত্রোপচার সম্পন্ন হয়।

শুক্রবার সকালের এ দুর্ঘটনায় ঘটনাস্থলেই মারা গেছেন অন্তরার স্বামী আল মাহমুদ ইমরান খান (৩৬)। তবে অন্তরাকে এখনও স্বামীর মৃত্যুর খবর জানানো হয়নি।

শুক্রবার সকালে ওসমানী হাসপাতালে গিয়ে দেখা যায়, বিলাপ করছেন ইমরান ও অন্তরার স্বজনরা। অন্তরার বাবা মো. আবু বক্কর সিদ্দিক বিলাপ করে বলেন, ‘বিসিএস পরীক্ষা আমার মেয়ের জীবনে কাল হয়ে দাঁড়াল। শুক্রবার বিসিএস পরীক্ষা দেওয়ার কথা ছিল তার। এর জন্য স্বামীকে হারাতে হলো। এখন বাচ্চা দুটোর কী হবে?’ কথাগুলো বলে অঝোরে কাঁদছিলেন

ছেলে হারানোর শোকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের জরুরি বিভাগের প্রধান ফটকের সামনে বিলাপ করে বারবার মুর্ছা যাচ্ছিলেন অন্তরার শাশুড়ি ফরিদা খান। তাদের সান্তনা দেওয়ার চেষ্টা করছিলেন ফরিদা খানের মেয়ে ইন্নরি খান।

শুক্রবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের সিলেটের দক্ষিণ সুরমা রশীদপুরে দুটি বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে দুই চালকসহ আটজন নিহত হয়েছেন। নিহত ব্যক্তিদের মধ্যে অন্তরার স্বামী আল মাহমুদ ইমরান খানও) রয়েছেন।

নিহত ইমরান সিলেট উইমেন্স মেডিকেল কলেজের ফরেনসিক মেডিসিন বিভাগের প্রভাষক ছিলেন। দুর্ঘটনায় তার স্ত্রী অন্তরা গুরুতর আহত হন। ওই চিকিৎসক দম্পতি চুয়াডাঙ্গার জীবননগরের বাসিন্দা। তারা সিলেটের সুবিদবাজারের ফাজিলচিশতে ভাড়া বাসায় থাকতেন।

নিহত ব্যক্তির পরিবার ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ৪২তম (বিশেষ) বিসিএসের প্রিলিমিনারি পরীক্ষায় অংশ নিতে দুই মেয়েকে সিলেটে রেখে শুক্রবার সকাল ছয়টার বাসে করে ঢাকায় যাচ্ছিলেন চিকিৎসক দম্পতি অন্তরা ও ইমরান। তবে সিলেট থেকে রওনা হওয়ার আধা ঘণ্টার মধ্যে ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের রশীদপুরে তাদের বহন করা এনা পরিবহনের বাসের সঙ্গে ঢাকা থেকে সিলেটমুখী লন্ডন এক্সপ্রেস বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই প্রাণ হারান ইমরান। আহত হন শারমিন আক্তার। ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের কর্মীদের মাধ্যমে খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে যান চিকিৎসক দম্পতির পরিবারের সদস্যরা।

পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, নিহত চিকিৎসক ইমরান সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজের সাবেক অধ্যাপক আমজাদ হোসেন খানের ছেলে। প্রায় সাত বছর আগে শারমিন আক্তার অন্তরার সঙ্গে ইমরানের বিয়ে হয়। তাদের সাড়ে চার বছর বয়সের ইনায়া খান ও তিন বছরের ইন্তিয়া খান নামের দুটি সন্তান আছে। তাদের সিলেটের বাসায় রেখে শুক্রবার বিকেলের বিসিএস পরীক্ষায় অংশ নিতে শারমিন স্বামীর সঙ্গে ঢাকার উদ্দেশে রওনা করেছিলেন।

রুমেলের দাফন সম্পন্ন : শুক্রবার বাদ আসর হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার মসজিদে নামাজের জানাজা শেষে মানিক পীর (রহ.) কবরস্থানে ইমরানরে দাফন সম্পন্ন হয়েছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top

প্রধান সম্পাদক: নজরুল ইসলাম শিপার
সম্পাদক:কামরুল হাসান জুলহাস

বক্স ম্যানশন, ৩য় তলা, বন্দর বাজার, সিলেট-৩১০০।
০১৭২০-৪৪৫৯০৮
news.talashbarta@gmail.com