প্রাণঘাতী রশিদপুর : দ্রুত ব্যবস্থা নিচ্ছে সড়ক ও জনপথ বিভাগ

210188.jpeg

সিলেট-ঢাকা মহাসড়কের দক্ষিণ সুরমা উপজেলার রশিদপুর বাজার। মহাসড়কে চলাচলকারী ও স্থানীয়দের কাছে এ বাজার মূর্তিমান আতঙ্কের স্থান। কখন ঘটবে দুর্ঘটনা, কে হারাবে প্রিয়জন তার কোনো দিনক্ষণ নেই।

প্রাণহানি এড়াতে দুর্ঘটনাপ্রবণ রশিদপুর বাজারে গোলচত্বর নির্মাণ করে এ স্থানের দুদিকে সড়ককে প্রশারিত করার দাবি দীর্ঘদিনের। স্থানীয়রা এ দাবি আদায়ে বিগত বছরগুলোতে বিভিন্ন কর্মসূচি পালন ও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিত-মৌখিকভাবে বার বার আবেদন করেও কোনো ফল পাননি। কিছুদিন পর পরই রশিদপুর এলাকায় ঘটে দুর্ঘটনা, ঝরে তাজা একাধিক প্রাণ। কিন্তু লাশের মিছিল চললেও সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ এ ব্যাপারে চরম উদাসীন। তবে গতকালের (শুক্রবার) বড় দুর্ঘটনার পর দ্রুত কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের সিদ্ধান্ত নিয়েছে সড়ক ও জনপদ বিভাগ।

সর্বশেষে গতকাল শুক্রবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে রশিদপুর নামক অকুস্থলে ভয়াবহ সড়ক দুর্ঘটনায় একে একে ঝরেছে ৮টি প্রাণ। যা সিলেটের নিকট অতীতের সবচেয়ে বড় দুর্ঘটনা।

সিলেট-ঢাকা মহসড়কের দক্ষিণ সুরমার রশিদপুর পয়েন্টের সঙ্গে বিশ্বানাথ বাইপাস সড়ক সংযুক্ত। রাস্তার এই অংশ কিছুটা বাঁকা ও বিপজ্জনক এবং এখানে রাস্তা অপ্রশস্ত। যার ফলে এ স্থানে প্রায়ই ঘাটে গাড়ির দ্বিমুখী, এমনকি ত্রিমুখী সংঘর্ষ। এসব দুর্ঘটনায় একাধিক প্রাণহানীর পাশাপাশি আহতের ঘটনা ঘটছে অহরহ।

গতকাল দুর্ঘটনার পর স্থানীয়রা আবারও গোলচত্বর ও সড়ক প্রশস্তের দাবি জানিয়ে এ প্রতিবেদককে বলেন, বারবার আবেদন-আন্দোলনের পরও কর্তৃপক্ষ এ অকুস্থলে গোলচত্বর নির্মাণ করছেন। একের পর এক খালি হচ্ছে মায়ের কোল। তা সত্ত্বে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নির্বিকার।

স্থানীয়রা বলেন, এবার দাবিগুলো পূরণ না হলে প্রাণ বাঁচানোর দাবিতে আমরা কঠোর আন্দোলন কর্মসূচি দিতে বাধ্য হবো।

তবে সড়ক ও জনপদ বিভাগ এ স্থানে যাতে আর দুর্ঘটনা না ঘটে সে লক্ষ্যে কিছু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। এ লক্ষ্যে দ্রুত কাজ শুরু হবে। তবে সিলেট-ঢাকা মহাসড়ক ৬ লেন প্রকল্প অনুমোদন পাওয়ায় আপাতত রশিদপুরে গোলাচত্বর নির্মাণ করা যাবে না।

এ বিষয়ে সড়ক ও জনপথ বিভাগ সিলেট বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মো. মোস্তাফিজুর রহমান আজ শনিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) সিলেটভিউ-কে বলেন, ‘এখানে একটি বিষয় হচ্ছে- সিলেট-ঢাকা মহাসড়ক ৬ লেন প্রকল্প অনুমোদন হয়ে যাওয়া আপাতত রশিদপুরে গোলাচত্বর নির্মাণ করা যাবে না। তবে ওই বাজারসহ আশপাশে সড়ক প্রশস্ত করার ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এছাড়াও সতর্কতামূলক সাইনবোর্ডও স্থাপন করা হবে।

তিনি বলেন, গতকালের দুর্ঘটনা কিন্তু দ্রুত ওভারটেকিংয়ের জন্য হয়েছে। এ জন্য গতিনিরোধক নির্দেশনাও এখানে দেয়া এবং ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top

প্রধান সম্পাদক: নজরুল ইসলাম শিপার
সম্পাদক:কামরুল হাসান জুলহাস

বক্স ম্যানশন, ৩য় তলা, বন্দর বাজার, সিলেট-৩১০০।
০১৭২০-৪৪৫৯০৮
news.talashbarta@gmail.com