যৌতুক দিতে দেরী হওয়ায় গৃহবধূর শরীরে আগুন

116514.jpeg

অগ্নিদগ্ধ হয়ে রুমি বেগম নামে মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলের এক গৃহবধূ সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। রুমির পরিবারের অভিযোগ, যৌতুকের ফার্নিচার দিতে দেরি হওয়ায় শ্বশুর বাড়ির লোকজন গৃহবধুর শরীরে আগুন দেয়।

এমন অভিযোগে ওসমানী হাসপাতাল থেকে রুমির স্বামী আনোয়ার ও শ্বশুর ইউসুফ মিয়াকে আটক করেছে পুলিশ। দগ্ধ রুমির অবস্থা আশঙ্কাজনক। বুধবার তাকে ঢাকায় প্রেরণ করা হয়েছে।

জানা গেছে, দেড় বছর আগে শ্রীমঙ্গলের সিন্ধুরখান তেলিয়াব্ধা গ্রামের ইউসুফ মিয়ার ছেলে আনোয়ার মিয়ার কাছে বিয়ে হয় সিন্ধুরখান নোয়াগাঁওয়ের মৃত আব্দুল কাদিরের মেয়ে রুমি বেগমকে। তাদের দুই মাসের একটি পুত্র সন্তানও রয়েছে।

গৃহবধু রুমির পরিবারের দাবি, বিয়ের পর ফার্নিচার দেয়ার কথা ছিলো। করোনা আসায় সময়মতো তা দিতে পারেননি। এজন্য প্রায়সময় শ্বশুরবাড়ির লোকজন রুমি বেগমকে নির্যাতন করতো।

রুমির বড় ভাই আশরাফুল আলম বলেন, বোনকে নির্যাতন থেকে রক্ষা করতে দার-দেনা করে ফার্নিচার রেডি করে নেয়ার জন্য রুমির শ্বশুর বাড়ির লোকজনকে খবর দেয়া হয়েছে। কিন্তু মঙ্গলবার রাত তিনটায় ফোন আসে রুমি আগুনে পুড়ে গেছে। কীভাবে আগুন লেগেছে তার কোন সদুত্তর দিতে পারেননি রুমির স্বামী ও শ্বশুর। তারা একেক সময় একেক কথা বলছেন।

ওসমানী হাসপাতালের দায়িত্বরত চিকিৎসক ডা. বুশরাতুল জান্নাত জানিয়েছেন, আগুনে দগ্ধ রুমির অবস্থা সংকটাপন্ন। উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকায় শেখ হাসিনা প্লাস্টিক এন্ড বার্ন ইনস্টিটিউটে প্রেরণ করা হয়েছে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top

প্রধান সম্পাদক: নজরুল ইসলাম শিপার
সম্পাদক:কামরুল হাসান জুলহাস

বক্স ম্যানশন, ৩য় তলা, বন্দর বাজার, সিলেট-৩১০০।
০১৭২০-৪৪৫৯০৮
news.talashbarta@gmail.com