সিলেটে হাঁফ ছেড়ে বাঁচলেন ‘নগদ’র গ্রাহকরা

311076.jpeg

ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে টাকা বিনিয়োগ করে সিলেটে বিপাকে পড়েছিলেন ডাক বিভাগের মোবাইল ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিস ‘নগদ’র কয়েক শ গ্রাহক। কিছু ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সন্দেহজনক লেনদেনের অভিযোগে সিলেটসহ সারাদেশে কয়েক হাজার নগদ অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছিলো সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ।

তবে কয়েক দফা যাচাই-বাছাই এবং পরীক্ষা-নিরীক্ষার পর সন্তোষজনকভাবে ত্রুটিপূর্ণ রিফান্ডের পেছনে জড়িত থাকা আটটি অ্যাকাউন্ট বাদে স্থিতি স্থগিত হওয়া সব ‘নগদ’ অ্যাকাউন্ট আবার সচল করা হয়েছে।

জানা গেছে, সাময়ীকভাবে বন্ধ হওয়া সিলেটের সকল গ্রহাকেরই অ্যাকাউন্ট ধাপে ধাপে রি-অ্যাক্টিভেট করে দেয়া হয়েছে। সিলেটের কয়েকজন নগদ গ্রাহক বিষয়টি  নিশ্চিত করেছেন।

এ বিষয়ে ‘নগদ’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক তানভীর এ মিশুক বলেন, ‘নগদ’-এর কাছে তার গ্রাহকদের স্বার্থ সবার ওপরে। ইতোমধ্যে স্থিতি হোল্ড হওয়া গ্রাহকদের প্রত্যেকের অর্থের সম্পূর্ণ নিরাপত্তা নিশ্চিতপূর্বক সিরাজগঞ্জশপ-এর কাছে গ্রাহকদের পাওনা রিফান্ডসহ সব ‘নগদ’ অ্যাকাউন্ট ধাপে ধাপে রি-অ্যাক্টিভেট করা হয়েছে। প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী ‘নগদ’-এর সম্মানিত গ্রাহকদের দুর্ভোগ দূর করতে আমরা এ ব্যবস্থা নিয়েছি।

গত ৭ সেপ্টেম্বর দুপুরে সিলেট বিভাগীয় ডাকঘরের সামনে নগদের কয়েক শ গ্রাহক জড়ে হয়ে বিক্ষোভ করেন। এসময় তারা জানান, সিরাজগঞ্জ শপ ও আলাদিনের প্রদীপসহ বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান সম্প্রতি ‘নগদ’র মাধ্যমে মূল্য পরিশোধ করে পণ্য কেনার আকর্ষণীয় ‘ডিসকাউন্ট অফার’ দেয়। তা দেখে সিলেটের কয়েক শ নগদ গ্রাহক সিরাজগঞ্জ শপ ও আলাদিনের প্রদীপসহ বিভিন্ন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানে পণ্য কিনতে টাকা বিনিয়োগ করেন। অনেকে লাখ টাকার উপরেও বিনিয়োগ করেন।

তবে কিছু গ্রাহককে পণ্য সরবরাহ করতে না পেরে শর্ত অনুযায়ী ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান সিরাজগঞ্জ শপ ও আলাদিনের প্রদীপ গ্রাহকদের টাকা ফেরত দিতে শুরু করে। গ্রাহকেরা যেসব প্ল্যাটফর্ম ব্যবহার করে পণ্য কেনার জন্য টাকা দিয়েছিলেন, সরকারি নির্দেশনা মেনে ই-কমার্স প্রতিষ্ঠানগুলো সেসব প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমেই টাকা ফেরত দিচ্ছে। তবে নগদ সেবার মাধ্যমে যাঁদের টাকা ফেরত আসছে, তাঁদের অনেকের অ্যাকাউন্ট বন্ধ করে দিয়েছে নগদ কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি সন্দেহজনক লেনদেনের আখ্যা দিয়ে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার উদ্যোগ নিয়েছে। ফলে সিলেটে আটকে গেছে কয়েক শ গ্রাহকের টাকা, ভোগান্তিতে পড়েছেন তারা।

অপরদিকে ৪ সেপ্টেম্বর এক বিজ্ঞপ্তিতে নগদ জানায়, সাম্প্রতিক সময়ে বিভিন্ন ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে সন্দেহজনক লেনদেনের সঙ্গে জড়িত থাকার লক্ষণ পরিলক্ষিত হওয়ায় কিছু হিসাবের তথ্য একাধিক নিয়ন্ত্রণ সংস্থা ও আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর কাছে হস্তান্তর করেছে ডাক বিভাগের মোবাইল আর্থিক সেবা নগদ। একই সঙ্গে হিসাবগুলোর লেনদেন স্থগিত করা হয়েছে। বিষয়টি নিয়ে কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্স ন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) বিভাগে আনুষ্ঠানিকভাবে জানানো হয়েছে। এ বিষয়ে তদন্ত চলমান রয়েছে।

বিষয়টি নিয়ে ‘নগদ’র ঊর্ধ্বতন এক কর্মকর্তা নাম প্রকাশ না করার শর্তে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সিলেটভিউ-কে মুঠোফোনে বলেন, ‘বিভিন্ন ই-কমার্স প্ল্যাটফর্মে সন্দেহজনক লেনদেন নজরে আসার পরই এমন পদক্ষেপ নেয় নগদ কর্তৃপক্ষ। বিষয়টি তদন্তাধীন। তদন্ত ও যাচাই শেষে সবার অ্যাকাউন্টই খুলে দেয়া হবে এবং প্রত্যেকে টাকাও ফেরত পাবেন, কারও টাকা গচ্ছা যাবে না।’

ওই কর্মকর্তা বলেন, ‘এ বিষয়ে গ্রাহকদের উদ্বেগের কিছু নেই। দ্রুতই বিষয়টি সমাধান হবে। তবে যদি কেউ সত্যিই অনিয়মতান্ত্রিক লেনদেনের সঙ্গে জড়িত থাকেন তাঁর বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

পরবর্তীতে বন্ধ হওয়া নগদ অ্যাকাউন্টগুলো চালু হওয়ায় হাঁফ ছেড়ে বাঁচেন সিলেটের গ্রাহকরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top

প্রধান সম্পাদক: নজরুল ইসলাম শিপার
সম্পাদক:কামরুল হাসান জুলহাস

বক্স ম্যানশন, ৩য় তলা, বন্দর বাজার, সিলেট-৩১০০।
০১৭২০-৪৪৫৯০৮
news.talashbarta@gmail.com