আমনের বাম্পার ফলনের স্বপ্ন দেখছেন গোয়াইনঘাটের কৃষকরা

aman.jpeg

সিলেটের কয়েকদফা বন্যায় আর সাম্প্রতিক খরায় ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে রোপায়িত আমন ফসলের মাঠের। একবার পানির নিচে তলিয়ে গেলেও আবার কৃষকরা রোপন করেছেন নতুন চারা। এভাবে একাধিকবার বন্যার ধকলে ছিলো কৃষকদের রোপায়িত আমনের মাঠ।

বন্যা থেকে বেঁচে মাথা দাড়ানোর চেষ্টা করতেই আবার খরার কবলে পড়ে আমন ধান। তবে সাম্প্রতিক কয়েকদফা স্বস্থির বৃষ্টি আবার সুরক্ষা হয়ে দাড়িয়েছে আমনের জন্য। আর সেই রোপিত আমনই এখন স্বপ্ন দেখাচ্ছে গোয়াইনঘাটের কৃষকদের।

গোয়াইনঘাটের উপজেলা কৃষি অফিস সুত্রে জানা যায়, এবার গোয়াইনঘাটে আমনের লক্ষমাত্রা ধরা হয়েছে ১৪ হাজার ৬শত ১০ হেক্টর। রোপিত এই লক্ষমাত্রা সফলতার মুখ দেখলে এখান থেকে উৎপাদিত হতে পারে ৪০ হাজার মেট্রিকটন আমনধান। উপসি ৫১- উপসি-৫২ জাতের ধানের আবাদ বেড়েছে। এসব জাত বন্যা সহনশীল হওয়াতে কৃষকদের ক্ষয়ক্ষতিও অনেক কম হবে।

আমন নিয়ে তাই আগেকার বছরের ন্যায় এবারও সফলতার গল্প রচিত হতে পারে বলে ধারনা কৃষি বিভাগের। লেঙ্গুড়ার কৃষক সিরাজ মিয়া,বার্কিপুরের মনাফ,পশ্চিম জাফলংয়ের তারুখালের জলিল মিয়াসহ বিভিন্ন কৃষকরা জানান,এবারও আমনের বাম্পার ফলনের সম্ভাবনা আছে,তবে বন্যা,খরায় বেশ ক্ষতি হয়েছে। অবশেষে কয়েকদিনের বৃষ্টি হয়েছে। তবে এদত সত্যেও এই আমনেই স্বপ্ন দেখছি আমরা।

জয়নাল আবেদিন নামের হাতিরপাড়া এলাকার একজন কৃষক জানান,এবার আমার ক্ষেতে ৩-৪ বার আমন ধান রোপন করেছি, প্রতি বারই বন্যায় ডুবিয়েছে। তারপরও এখন যা দেখছি তাতে ভালো ফলন পেতে পারি বলে ধরে নিচ্ছি।  এবার আমন ম্যেসুম শুরুর আগে গোয়াইনঘাটের কৃষকদের মধ্যে ৭৫০জন কৃষককে বীজ সহায়তা এবং  ৪শত জনকে সারসহ বীজ সহায়তা প্রদান করা হয়েছে।

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থানমন্ত্রী ও স্থানীয় সংসদ সদস্য ইমরান আহমদের ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় উপজেলা পরিষদ ও প্রশাসন তরফে গোয়াইনঘাটের কৃষি বিভাগের মাধ্যমে সর্বত্রই এসব কৃষি সহায়তা প্রদান করা হয়।

কথা হলে গোয়াইনঘাটের উপজেলা কৃষি অফিসার সুলতান আলী জানান, এবার গোয়াইনঘাটের ফসলের মাঠে আবারো আমনের বাম্পার ফলনের আশা করছি। উপসি ৫১-উপসি ৫২ জাতের আমন ধারে আবাদ বেড়েছে। এতে করে ফলনও বাড়বে আমানরুপভাবে। ১৮দিন বন্যা থাকার পরও বন্যা সহনশীল এই জাতের ধান রোপনে গোয়াইনঘাটের কৃষকরা ব্যাপক সফলতা পাবেন এমনটাই প্রত্যাশা আমাদের।

গোয়াইনঘাটের উপজেলা নির্বাহী অফিসার তাহমিলুর রহমান জানান, সরকার কৃষকের কল্যানে তৎপর। কৃষক বাচলে দেশ বাচবে আমাদের প্রতি সরকারের এমন নির্দেশনার আলোকে প্রশাসন সব সময়ই কৃষকের দোরগোড়ায় গিয়ে সেবা দিচ্ছে। কৃষকদের যে কোন প্রয়োজনে সরকার আন্তরিক হয়ে কাজ করে যাচ্ছে। সার, বীজ সহায়তাসহ তাদের সব ধরণের প্রনোদনাসহ বিভিন্ন সহযোগিতার হাত অব্যাহত রেখেছেন। তাদের যে কোন কল্যানে কৃষক বান্ধব বর্তমান সরকার পাশে থাকবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

scroll to top

প্রধান সম্পাদক: নজরুল ইসলাম শিপার
সম্পাদক:কামরুল হাসান জুলহাস

বক্স ম্যানশন, ৩য় তলা, বন্দর বাজার, সিলেট-৩১০০।
০১৭২০-৪৪৫৯০৮
news.talashbarta@gmail.com